ইসলাম ধর্ম

আয়না নামাজের সময় সামনে থাকলে কি নামাজের ক্ষতি হবে?

নামাজের সময় সামনে আয়না থাকলে এবং আয়নায় নামাজির পরিপূর্ণ ছায়া পড়লেও নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে না। তবে আয়না থাকার কারণে যদি নামাজির মনোযোগ নষ্ট হয়, বারবার নজর আয়নার দিকে যায়, তাহলে নামাজ মাকরুহ হতে পারে।

এ কারণে বাসায় অন্য জায়গা থাকলে বড় আয়নার সামনে নামাজ না পড়া উচিত। মসজিদে কাতারের সামনের দেওয়ালে আয়না লাগানো সমীচীন নয়। যেহেতু তা অনেক নামাজির মনোযোগ নষ্টের কারণ হতে পারে। তবে মসজিদে দরজা বা পার্টিশন হিসেবে ব্যবহৃত গ্লাসে হালকা প্রতিবিম্ব দেখা গেলে তাতে সমস্যা নেই। যেহেতু এটা তেমন চোখে পড়ে না।

আয়না বা এ রকম দৃষ্টি আকর্ষক কোনো জিনিস নামাজের সময় সামনে থাকলে নামাজির কর্তব্য হলো চোখ সিজদার জায়গায় রাখা, সামনে না তাকানো। এমনিতেও নামাজে এদিক ওদিক তাকানো উচিত নয়। আয়েশা (রা.) বলেন, আমি রাসুলকে (সা.) নামাজে এদিক ওদিক তাকানো সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলাম। তিনি বললেন,
هُوَ اخْتِلاَسٌ يَخْتَلِسُهُ الشَّيْطَانُ مِنْ صَلاَةِ الْعَبْدِ
এটা এক ধরণের ছিনতাই, যার মাধ্যমে শয়তান বান্দার নামাজ থেকে অংশবিশেষ কেড়ে নেয়। (সহিহ বুখারি)

আরেকটি হাদিসে রাসুল (সা.) বলেছেন,

وَإِنَّ اللَّهَ أَمَرَكُمْ بِالصَّلَاةِ فَإِذَا صَلَّيْتُمْ فَلَا تَلْتَفِتُوا فَإِنَّ اللَّهَ يَنْصِبُ وَجْهَهُ لِوَجْهِ عَبْدِهِ فِي صَلَاتِهِ مَا لَمْ يَلْتَفِتْ
আল্লাহ্ তোমাদেরকে নামাজ আদায়ের নির্দেশ দিয়েছেন। তোমরা নামাজের সময় এদিক-ওদিক তাকাবে না। বান্দা যতক্ষণ এদিক-ওদিক না তাকায়, ততক্ষণ আল্লাহর চেহারা বান্দার চেহারার সামনে থাকে। (সুনানে তিরমিজি)

আয়না সামনে থাকায় নামাজি যদি বারবার আয়নায় নিজেকে দেখে চুল বা কাপড় সোজা করে তাহলে তা আমলে কাসীর গণ্য হয়ে নামাজ নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

Related posts

নামাজের সময়সূচি: ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

Asma Akter

ঈদ কত তারিখে এ বছর

Mehedi Hasan

নামাজের সময়সূচি: ৩১ জানুয়ারি ২০২৪

Asma Akter

Leave a Comment