কৃষিবাংলাদেশে

ভোলার লালমোহনে অধিক লাভের আশায় সূর্যমুখী চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকের

ভোলার লালমোহনে অধিক লাভের আশায় সূর্যমুখী চাষের দিকে ঝুঁকছেন কৃষকেরা। গত বছর ফলন ও দাম ভালো পাওয়ায় এ বছর সূর্যমুখীর চাষ বেড়েছে পাঁচগুণ। গত বছর এ উপজেলায় ৩২ হেক্টর জমিতে সূর্যমুখীর চাষ হয়েছিল। এ বছর তা বেড়ে ১৬২ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি সূর্যমুখির চাষ করেছেন উপজেলার লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের কৃষকরা

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষি জমিতে সূর্যের হাসি ছড়াচ্ছে সূর্যমুখী ফুল। এ এক অপরুপ দৃশ্য। সবুজ গাছ আর হলুদ ফুলের বাহারি দৃশ্য প্রকৃতি যেন তার রুপ বিলিয়ে দিচ্ছে। ফুলের সৌন্দর্য দেখতে দর্শনার্থীরা গাছের পাশে ভিড় জমাচ্ছেন এবং অনেকে ফুলের সঙ্গে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতে দেখা গেছে।

উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে, এ বছর লালমোহনে ১ লক্ষ ৫৬ হাজার লিটার সূর্যমুখীর তেল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আবহাওয়া ভালো থাকলে এই উপজেলায় ৩৯০ মেট্রিক টন সূর্যমুখীর বীজ উৎপাদন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলার লালমোহন ইউনিয়নের কৃষক শাখাওয়াত হোসেন ও মো. বজলু মিয়া বলেন, কৃষি অফিসের পরামর্শ নিয়ে এ বছর আমরা প্রথমবার সূর্যমুখি চাষ করেছি। ফলন ভালো হয়েছে। আশা করছি এই সূর্যমুখি চাষ করতে যা খরচ হয়েছে তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি লাভবান হবো।

এ ব্যাপারে লালমোহন উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. আহসান উল্যাহ জানান, সূর্যমুখী তেলে পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। আগামীতেও কেউ যদি নতুনভাবে সূর্যমুখি চাষে আগ্রহী হয়, তাহলে আমরা সব সময় তাদের পাশে থাকবো।

তিনি আরো জানান, কৃষি অফিসের বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে এবছর উপজেলায় গত বছরের চেয়ে পাঁচগুন সূর্যমুখীর চাষ করা হয়েছে। এবার ফলনও অনেক ভালো হয়েছে। আশা করছি সবকিছু ঠিক থাকলে চাষিরা তাদের ফলনের ন্যায্য মূল্য পেয়ে অধিক লাভবান হবেন।

Related posts

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠার গল্প

Suborna Islam

৩০ নভেম্বর প্রকাশ হতে পারে এইচএসসির ফলাফল

Samar Khan

এই গরমে নিম গাছের উপকারীতা

Megh Bristy

Leave a Comment