খেলাসর্বশেষ

‘এখান থেকে ৪-৫টি ম্যাচ আমরা জিততেও পারি’

তিন বড় হারের পর বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পরের ৪-৫টি ম্যাচে জয়ের আশা করছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরুর পর টানা তিন ম্যাচে পরাজয়। ইংল্যান্ড, নিউ জিল্যান্ড, ভারতের মতো দলের কাছে হারটা অস্বাভাবিক নয়। তবে সেমি-ফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়ে বিশ্বকাপে আসা দলের তো এসব প্রতিপক্ষের সঙ্গেও জিততে হবে! উল্টো জয় তো বহুদূর, এই তিন ম্যাচে প্রতিপক্ষের চোখে চোখ রেখে লড়াই করতেই পারেনি বাংলাদেশ।

ভারতের কাছে হারার পর শান্তর কণ্ঠে আক্ষেপ আর আশা, দুটিই শোনা গেল। দুটিই অবশ্য পুরোনো। স্রেফ শোনা গেল নতুন করে। আক্ষেপ ব্যাটিং নিয়ে। আশা সামনের সব ম্যাচ জয়ের!

নিউ জিল্যান্ড ও ভারতের বিপক্ষে পরপর দুই ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছে মূলত ব্যাটিং ব্যর্থতায়। খুব ভালো ব্যাটিং উইকেটেও বাংলাদেশের ব্যাটিং ছিল একদমই গড়পড়তা। এমনকি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বোলাররা দেদার রান বিলিয়ে দেওয়ায় লক্ষ্যটা অনেক বড় ছিল বটে, তবে ব্যাটসম্যানরাও পারেনি জবাব দিতে বা অন্তত খেলা জমিয়ে তুলতে।

আগের ম্যাচগুলির চেয়ে অবশ্য একটি জায়গায় ব্যতিক্রম ছিল পুনেতে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ। লিটন কুমার দাস ও তানজিদ হাসান এ দিন দলকে এনে দেয় ভালো শুরু। ৬ ম্যাচ পর প্রথম পাওয়ার প্লেতে উইকেট হারায়নি দল, ৬ ম্যাচ পর শুরুর জুটিতে আসে পঞ্চাশ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেরা উদ্বোধনী জুটির রেকর্ডও গড়েন দুজন।

এই ধরনের উইকেটে ভারতের মতো দলের বিপক্ষে প্রয়োজন বড় ইনিংস। সেখানেই ব্যর্থ দুজনই। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম ফিফটিকে ৫১ রানের বেশি এগিয়ে নিতে পারেননি তানজিদ। লিটন বেশ নিয়ন্ত্রিত খেললেও দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতোই শট খেলে আউট হন ৬৬ রানে।

সামনের ম্যাচগুলোতে দলের চাওয়াটাও জানিয়ে দিলেন শান্ত। নিউ জিল্যান্ডের কাছে হারার পর মুস্তাফিজুর রহমান বলেছিলেন, “পরের ৬ ম্যাচের ৬টিও জিততে পারি।” সেই ৬ ম্যাচের একটি চলে গেছে পরাজয়ের বিষাদ উপহার দিয়ে। এবার শান্ত বললেন পরের ৫ ম্যাচের কথা।

“পরের ম্যাচ যখন খেলতে নামব, অবশ্যই জেতার জন্যই খেলব। আমার মনে হয়, আমরা আমাদের সেরাটা, বিশেষ করে ব্যাটিংয়ের সেরাটা করতে পারিনি। আশা করি সামনের ম্যাচগুলিতে ব্যাটসম্যানরা দায়িত্ব নিয়ে খেলার চেষ্টা করবে এবং এখনও আমার কাছে মনে হয়, অনেক কিছু করার বাকি আছে।”

“গুরুত্বপূর্ণ হলো, আমাদের একটা ভালে ম্যাচ খেলা দরকার। একটা ভালো ম্যাচ দলের মোমেন্টাম বদলে দেবে। এখনও ৫ বাকি। কেউই জানি না… এখান থেকে ৪-৫টি ম্যাচ আমরা জিততেও পারি। প্রতিটি ম্যাচ জেতার জন্যই খেলব। গুরুত্বপূর্ণ হলো, পরের ম্যাচে আমরা কতটা ভালো খেলতে পারি এবং কীভাবে জিততে পারি।”

পরের ম্যাচ খেলতে শুক্রবার সড়কপথে মুম্বাই যাবে বাংলাদেশ দল। আগামী মঙ্গলবার এখানে প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা।

Related posts

অজু করুন পরিপূর্ণরূপে,জাহান্নামের আগুন থেকে বাঁচতে

Asma Akter

নামাজের সময়সূচি: ৩১ জানুয়ারি ২০২৪

Asma Akter

টিকটক ওসামা বিন লাদেন-সম্পর্কিত সব ভিডিও সরিয়ে নিচ্ছে

Rubaiya Tasnim

Leave a Comment