ইসলাম ধর্ম

সুন্নাত ও নফল নামাজ বসে পড়া যাবে কি?

Pickynews24

ইসলামে নফল নামাজ বলতে এমন নামাজ বোঝায় যা আদায় করলে সওয়াব রয়েছে কিন্তু আদায় না করলে গুনাহ নেই। প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্তের ১৭ রাকাত ফরজ নামাজ, তিন রাকাত ওয়াজিব বেতর নামাজ ছাড়া অন্যান্য নামাজ নফল নামাজ। এর মধ্যে চার ওয়াক্তের বারো রাকাত সুন্নাতে মুআক্কাদা নামাজ বিশেষ গুরুত্ব ও ফজিলতপূর্ণ। দুই ওয়াক্তের আট রাকাত সুন্নাতে জায়েদা নামাজেরও বিশেষ ফজিলত রয়েছে।

কিছু নফল নামাজ নির্দিষ্ট সময়ে পড়তে হয়; যেমন শেষ রাতে তাহাজ্জুদের নামাজ, সূর্য ওঠার পর ইশরাকের নামাজ, সূর্য তেঁতে ওঠার পর চাশতের নামাজ, মাগরিবের পর আউওয়াবিন নামাজ ইত্যাদি। এ ছাড়া তিনটি হারাম ওয়াক্ত বা সময় ছাড়া দিনের যেকোনো সময় নফল নামায পড়া যায়।

দুরাকাত বা চার রাকাত করে নফল নামাজ পড়া যায়। নফল নামাজের প্রতি রাকাতেই সুরা ফাতেহার সাথে সুরা মেলাতে হয়। নিয়ত করে শুরু করার পর নফল নামাজ পূর্ণ করা ওয়াজিব হয়ে যায়। কেউ যদি শুরু করার পর নফল নামাজ ভেঙে ফেলে, তাহলে ওই নামাজটি আবার পড়ে নেওয়া ওয়াজিব।

নফল ও সুন্নাত নামাজগুলো কোনো ওজর বা অসুবিধা ছাড়া বসে আদায় করা জায়েজ। তবে ওজর ছাড়া বসে নামাজ আদায় করলে দাঁড়িয়ে আদায়কৃত নামাজের অর্ধেক সওয়াব পাওয়া যায়। ইমরান ইবনে হোসাইন (রা.) বলেন, আমি রাসুলকে (সা.) বসে নামাজ আদায় সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন,
إن صلى قائماً فهو أفضل، ومن صلى قاعداً فله نصف أجر القائم

যদি দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করে, তবে তাই উত্তম। আর বসে নামাজ আদায় করলে দাঁড়িয়ে নামাজ আদায়কারীর অর্ধেক সওয়াব পাওয়া যাবে। (সহিহ বুখারি: ১১১৫)

ফরজ ও ওয়াজিব নামাজগুলো দাঁড়িয়ে আদায় করা জরুরি। কোনো ওজর বা অসুবিধা ছাড়া ফরজ-ওয়াজিব নামাজ বসে আদায় করা বৈধ নয়।

Related posts

ইসলামি শরিয়তের সাহু সিজদা করার নিয়ম

Asma Akter

৮ম পর্বঃ ইমাম মাহাদী ও তার আগমন পূর্ব আলামত সমূহ

Asma Akter

আল্লাহ রাব্বুল আলামিন, তিনি তোমাদের জীবন দান করেছেন, তিনি আবার মৃত্যু দেবেন

Asma Akter

Leave a Comment