ইসলাম ধর্ম

ভুল করে ফরজ নামাজের তৃতীয় রাকাতে সুরা মেলালে সাহু সিজদা কি দিতে হবে?

চার রাকাতবিশিষ্ট ফরজ নামাজগুলো শেষ দুই রাকাতে শুধু সুরা ফাতেহা পড়তে হয়, এ দুই রাকাতে সুরা ফাতেহার পর অন্য সুরা ফেলানো সুন্নাত পরিপন্থী ও অনুত্তম। সাহাবি আবু কতাদা (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) জোহর এবং আসরের নামাজের প্রথম দুই রাকাতে সুরা ফাতেহা ও আরেকটি সুরা পড়তেন। আর শেষ দুই রাকাতে শুধু সুরা ফাতেহা পড়তেন। ( সহিহ বুখারি: ৭৫৯)

ইবনে সিরিন (রহ.) বলেন, আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.) জোহর ও আসরের প্রথম দুই রাকাতে সুরা ফাতেহা ও কোরআন থেকে যতটুকু সহজ হয় পড়তেন। আর পরের দুই রাকাতে শুধু সুরা ফাতেহা পড়তেন। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শাইবা: ৩৭৪৩)

তবে এ দুই রাকাতে কেউ যদি ভুল করে সুরা ফাতেহার পর কোরআনের আরও কিছু অংশ পড়ে ফেলেন, তাহলে সাহু সিজদা আবশ্যক হয় না। ইচ্ছাকৃত এ রকম করা অনুত্তম ও সুন্নাতের খেলাফ, কিন্তু এটা সাহু সিজদা ওয়াজিব হওয়ার মতো কোনো ত্রুটি নয়।

ইসলামি শরিয়তের পরিভাষায় সাহু সিজদা বলা হয় কোনো কারণে ত্রুটিযুক্ত হয়ে পড়া নামাজের শেষ বৈঠকে আত-তাহিয়াত পড়ে শুধু ডান পাশে সালাম ফিরিয়ে দুটি অতিরিক্ত সিজদা করাকে। সাহু সিজদার পর আবার আত-তাহিয়াত পড়ে, দরুদ ও দোয়ায়ে মাসুরা পড়ে ডান ও বাম পাশে সালাম ফিরিয়ে নামাজ শেষ করতে হয়।

নামাজে কোনো ওয়াজিব ছুটে গেলে, কোনো ফরজ দুবার আদায় করলে, কোনো ওয়াজিব পরিবর্তন করলে এবং কোনো ফরজ বা ওয়াজিব আদায়ে দেরি হলে সিজদায়ে সাহু আদায় করতে হয়। সাহু সিজদার মাধ্যমে ওই ভুলগুলোর প্রতিবিধান হয় এবং নামাজ বিশুদ্ধ হয়ে যায়। উপরোক্ত ভুলগুলো হওয়ার পরও সাহু সিজদা আদায় না করলে ত্রুটিযুক্ত নামাজটি আবার পড়ে নেওয়া ওয়াজিব।

 

Related posts

নামাজের সময়সূচি: ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

Asma Akter

নামাজের রাকাত নিয়ে সন্দেহে হলে তার করনীয়

Asma Akter

নামাজে হাই শয়তানের পক্ষ থেকে আসে

Asma Akter

Leave a Comment