জাতীয়ঢাকা

ভ্রাতৃত্বের দৃষ্টান্ত স্থাপন, বড় ভাইকে কিডনি দিলেন ছোটভাই 

নিজের একটি কিডনি দিয়ে বড় ভাই সাইফুল ইসলাম সবুজকে বাঁচালেন ছোটভাই আতাউল ইসলাম পলাশ। হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের কমলপুর গ্রামের মানিক মিয়ার ছোট ছেলে আতাউল ইসলাম পলাশ ভ্রাতৃত্বের এমন দৃষ্টান্ত গড়লেন।

রাজধানী ঢাকার বারডেম হাসপাতালে শনিবার (১২ আগস্ট) সফল অস্ত্রোপচার শেষে তারা দুই ভাই বর্তমানে সুস্থ ও চিকিৎসাধীন আছেন। ভাইয়ের জন্য ভাইয়ের এমন ভালোবাসা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আলোচিত হচ্ছে। আর প্রশংসায় ভাসছেন ছোটভাই।

উপজেলার কমলপুর গ্রামের বাসিন্দা মানিক মিয়া চৌমুহনী ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার হিসেবে কর্মরত। তার তিন ছেলে। এদের মধ্যে সৌদি আরব প্রবাসী বড় ছেলে সবুজ। তার ছোট ছেলে পলাশ ভালোবাসার অনন্য দৃষ্টান্ত গড়েছেন। নিজের জীবনের কথা না ভেবে একটি কিডনি দিয়ে বড় ভাইয়ের জীবন বাঁচিয়েছেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, দুই বছর আগে পরিবারের আর্থিক স্বচ্ছলতা ফেরাতে সৌদি আরবে পাড়ি জমান মানিক মিয়ার বড় ছেলে সাইফুল ইসলাম সবুজ। এরমধ্যে হঠাৎ সবুজের কিডনির সমস্যা ধরা পড়ে। পরে তিনি সৌদি আরব থেকে দেশে চলে আসেন। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসক জানান তার দুটি কিডনিই নষ্ট হয়ে গেছে। ডায়ালাইসিস করেও তার শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি হচ্ছিল না।

চিকিৎসকরা সবুজের দুটি কিডনি বিকল হয়ে যাওয়ার কথা জানিয়ে যত দ্রুত সম্ভব কিডনি প্রতিস্থাপনের কথা বলেন। এমন দুঃসংবাদে ভেঙে পড়ে পরিবার। পরিবারের পক্ষে সবুজের চিকিৎসার ব্যয় বহন করাও সম্ভব নয়। একপর্যায়ে তার ছোটভাই আতাউল ইসলাম পলাশ ভাইকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন। স্বেচ্ছায় নিজের কিডনি বড় ভাইকে দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান। পরে শনিবার পরিবারের সবার মতামতের ভিত্তিতে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে তাদের অস্ত্রোপচার হয়। চার ঘণ্টার অস্ত্রোপচারের পর এখন দুই ভাই সুস্থ আছেন।

বাবা মানিক মিয়া কিডনি প্রতিস্থাপনের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অপারেশনের পর তার দুই ছেলেই সুস্থ আছেন

Related posts

ভৈরবে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ১৫

Suborna Islam

নাশকতা ঠেকাতে বিজিবির টিম ‌‘র‍্যাট’ মোতায়েন

Asma Akter

স্ত্রী আছে, সন্তান আছে, তবু তাঁরা ‘হিজড়া’

Rishita Rupa

Leave a Comment