কৃষি

শেখ হাসিনা একজন সফল চাষিও!

 

 

শুধু প্রধানমন্ত্রী বা আওয়ামী লীগ সভাপতি নন, তার সাফল্যের মুকুটে আছে আরও অনেক পালক। এবার তাতে যুক্ত হয়েছে ‘সফল চাষি’র বিশেষণও।

তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। হ্যাঁ, বঙ্গবন্ধু-কন্যা একজন সফল চাষিও বটে। সরকারি বাসভবন গণভবন কমপ্লেক্সকে খামারের রূপ দিয়েছেন তিনি। এখানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা ফাঁকা জায়গায় তিনি ফলিয়েছেন সোনার ফসল। প্রতি ইঞ্চি জমি ব্যবহারের উদাহারণ শেখ হাসিনা সৃষ্টি করেছেন নিজ আবাস থেকেই।

গণভবনের বিশাল আঙ্গিনায় হাঁস—মুরগি, কবুতর ও গরু লালন-পালনের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রজাতির ধান, শাক—সবজি, ফুল-ফল, মধু ও মাছ চাষ করছেন এদেশের মাটি ও মানুষের মাঝে বেড়ে ওঠা বঙ্গবন্ধু-কন্যা। তিল-সরিষা, পেঁয়াজসহ মসলা জাতীয় ফসলও ফলিয়েছেন তিনি। অবসর পেলেই এসব তদারকিতে নেমে পড়েন মধুমতি তীরের মেয়ে শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ বিষয়ে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈশ্বিক খাদ্য সংকট মোকাবেলায় দেশের জনগণকে প্রতি ইঞ্চি জমিতে ফসল ফলানোর আহ্বান জানিয়ে আসছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তিনি নিজে গণভবন আঙ্গিনার পতিত প্রতি ইঞ্চি জমিকে উৎপাদনের আওতায় এনেছেন। জনগণের প্রতি করা নিজের আহ্বানকে বাস্তবে রূপদান করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি।’

প্রেস সচিব বলেন, ‘এদেশের আলো—হাওয়ায় বেড়ে ওঠা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ জীবন-যাপনে অভ্যস্ত। দেশের মাটি—মানুষ, কৃষির সঙ্গে মিশে আছে তার প্রাণ। গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই ফসলি উঠোনে নানা ধরনের ফসলের আবাদ তারই ছোট্ট একটা দৃষ্টান্ত।

‘প্রতি ইঞ্চি জমিতে আবাদ করার বিষয়টি শেখ হাসিনার বাবা থেকে পাওয়া। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭৪ সালের সবুজ বিপ্লবের ডাক থেকে তার বড় কন্যা অনুপ্রাণিত হয়েছেন।’

সূত্র জানায়, গণভবন আঙ্গিনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাঁশফুল, পোলাও চাল, লাল চালসহ বিভিন্ন জাতের ধান; ফুলকপি, বাঁধাকপি, লালশাক, পালং শাক, ধনেপাতা, গ্রাম-বাংলার জনপ্রিয় বতুয়া শাক, ব্রকোলি, টমেটো, লাউ, সিমসহ প্রায় সব ধরনের শীতকালীন শাক-সবজি চাষ হচ্ছে। রয়েছে তিল, সরিষা, সরিষা ক্ষেতে মৌচাক পালনের মাধ্যমে মধু আহরণ, হলুদ, মরিচ, পেঁয়াজ, তেজপাতাসহ বিভিন্ন ধরনের মশলা; আম, কাঁঠাল, কলা, লিচু, বরই, ড্রাগন, স্ট্রবেরিসহ বিভিন্ন ধরনের ফল; গোলাপ, সূর্যমুখী, গাঁদা, কৃষ্ণচূড়াসহ নানা রঙের ফুলের চাষ।

সংশ্লিষ্টরা জানান, এসব ফসল ফলাতে ব্যবহার করা হয় গণভবনে গরুর খামারের গোবর থেকে উৎপাদিত জৈব সার।

গণভবনের আঙ্গিনায় আলাদা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরুর খামার, দেশি হাঁস-মুরগি, তিতির, চীনা হাঁস, রাজহাঁস ও কবুতরের খামার করেছেন। গণভবন পুকুরে চাষ করছেন রুই-কাতলা, তেলাপিয়া, চিতলসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। এমনকি গণভবন পুকুরে মুক্তার চাষও করছেন শেখ হাসিনা। অবসর সময়ে গণভবনের লেকে মাছও ধরেন তিনি। তার মাছ ধরার ছবি এর আগে গণমাধ্যমেও প্রকাশ হয়েছে।

গণভবন সূত্র জানায়, উৎপাদিত এসব নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের জন্য সামান্য রেখে গণভবন কর্মচারী এবং দরিদ্র-অসহায়দের মধ্যে বিলিয়ে দেন।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, এবার যে পরিমাণ জমিতে পেঁয়াজ চাষ করা হয়েছে তাতে ১০০ মণের কাছাকাছি ফলন হতে পারে। রোববারই ৪৬ মণ পেঁয়াজ তোলা হয়েছে। বাকি জমিতে আরও ৫০ মণের বেশি পেঁয়াজ পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

দেশি পেঁয়াজের বর্তমান বাজার দর ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজি। সে হিসাবে গণভবনে ফলন পাওয়া ৪৬ মণ পেয়াজের দাম আনুমানিক ৬৫ হাজার থেকে ৭৩ হাজার টাকা। পাঁচজনের একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে মাসে ৫ কেজির চাহিদা হিসেবে এখানে উৎপাদিত প্রায় ১০০ মণ পেঁয়াজে সাতশ’ থেকে আটশ’ পরিবারের এক মাসের পেঁয়াজের চাহিদা পূরণ হবে।

প্রসঙ্গত, করোনা মহামারি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ, নিষেধাজ্ঞা-পাল্টা নিষেধাজ্ঞায় টালমাটাল বিশ্বে খাদ্য ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সংকট দেখা দেয়ার পর থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খাদ্য উৎপাদন বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করে আসছেন। সরকারি, বেসরকারি ও দলের সব অনুষ্ঠানে প্রতি ইঞ্চি জমিকে আবাদের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়ে আসছেন তিনি।

সফল রাজনীতিবিদ, সফল মা, সফল রাষ্ট্রনায়ক, সফল প্রশাসক, প্রেরণাদায়ী স্ত্রী এবং সফল সন্তানের পাশাপাশি শেখ হাসিনা এখন একজন সফল চাষীও।

Related posts

চাষিরা হলুদ চাষে ভাগ্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন

Asma Akter

পোল্ট্রি খামারে খাগড়াছড়ির আজিজুল প্রথম বছরে পান সফলতা

Asma Akter

সারের মূল্য বৃদ্ধিসহ ও কৃত্রিম সংকটে কৃষকরা দিশেহারা

admin

Leave a Comment