বিজ্ঞানশিক্ষাসর্বশেষ

মানুষ কেন হাসে?

মানুষ কেন হাসে

মানুষ কেন হাসে?

মানুষ হাসে কারণ এটি একটি সামজিক এবং মানসিক প্রক্রিয়া। হাসানো একটি প্রাকৃতিক সংকেত যা আমাদের সার্থকভাবে কমলে বা সমস্যা মোকাবিলা করলে মুক্তি অর্জন করতে সাহায্য করে। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক সময় জীবনের চাপ ও তনাবে মুখোমুখি হতে হয়, এই চাপ মোকাবিলায় হাসা মানুষকে একটি মুক্তিপ্রাপ্তির অনুভূতি দেয়। তাছাড়া, সাম্য, সম্পর্কে মিথ্যা, অদৃশ্য অবস্থা, সার্বিক হাসির দরজা থেকে মানুষের হাসির আনন্দ লবণিত হয়ে আসে। এছাড়াও, সোশাল বন্ধুত্ব, মজার উপকারিতা, কৌতুহল বা নতুন অবিষ্কারের অনুভব মানুষকে হাসির মুখ খোলা বা হাসি জড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

বৈজ্ঞানিক বর্ণনা:

হাজার হাজার হাসির উদাহরণ নিয়ে গবেষণা করেছেন বিজ্ঞানীরা। দেখা গেছে, কথোপকথনের ক্ষেত্রে শ্রোতার চেয়ে বক্তার হাসার সম্ভাবনা ৪৬ শতাংশ বেশি। আবার আমেরিকান ফিজিওলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা বলছে, দলবেঁধে আড্ডার সময় হাসার সম্ভাবনা ৩০ গুণ বেড়ে যায়। শিশুদের নিয়ে চালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, আড়াই থেকে চার বছর বয়সী শিশুরা একা একা কার্টুন দেখলে যতটা হাসে, অন্য কোনো শিশুর সঙ্গে বসে দেখলে তাদের হাসার সম্ভাবনা ৮ গুণ বেড়ে যায়। এ ছাড়াও দেখা গেছে, হাসির ধরনের বোঝা যায়, মানুষ কতটা ঘনিষ্ট। তাদের সম্পর্ক কত পুরাতন

স্বাস্থ্যগত উপকারীতা:

হাসির অবশ্য বেশ কিছু স্বাস্থ্যগত উপকারী দিকও আছে। হাসলে আপনার অক্সিজেন ইনটেক, অর্থাৎ দেহের টিস্যুগুলোর অক্সিজেন গ্রহণের পরিমাণ বেড়ে যায়। পাশাপাশি হাসলে এন্ডোরফিন নামে একধরনের রাসায়নিক শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। এ হরমোন আমাদের খুশির পেছনের কারিগর। খুশির বাড়ানোর পাশাপাশি কমিয়ে দেয় ব্যথা ও দুশ্চিন্তা।

Related posts

বিশ্বজুড়ে ‘জম্বি ডিয়ার’ রোগ নিয়ে দুশ্চিন্তায় বিজ্ঞানীরা

Megh Bristy

বছর শেষে স্পটিফাই থেকে টেইলর সুইফটের আয় কত ?

Suborna Islam

ঋণে জর্জর রানার অটোমোবাইলস

Suborna Islam

Leave a Comment