বাংলাদেশেসর্বশেষ

এ বছর সম্ভব হয়নি, তবে আগামী বছর রমজানে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম বেঁধে দেওয়া হবে!

এ বছর সম্ভব হয়নি, তবে আগামী বছর রমজানে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম বেঁধে দেওয়া হবে!

আগামী রমজানে মন্ত্রিসভার অনুমোদন নিয়ে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু জানিয়েছেন যে, অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম এবং তাদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরি করা হবে। হালকা ভাবে এবং সাম্যভাবে তাদের তালিকা প্রকাশ করে তিনি বলেছেন, তবে এই বছর তাতে সফলতা অর্জন হয়নি। তবে, আসছে রমজান, সেইসময় অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম নির্ধারণ করতে চেষ্টা করা হবে।

আস্থার সাথে তিনি বলেছেন, কেবিনেটে একটি কমপ্লিটলিস্ট তৈরি করতে অনুমতি নেয়া হবে এবং কৃষি পণ্যের সর্বোচ্চ মূল্য নির্ধারণ করতে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সহযোগিতা করা হবে। রাবার সকালে, তিনি সচিবালয়ে কৃষিপণ্য সরবরাহে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) এবং রাশিয়ার কৃষি মন্ত্রণালয়ের ‘প্রোডিনটর্গ’ এর সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এ কথা জানিয়েছেন।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৮টি অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের রাষ্ট্রীয় সার্কুলার দিয়ে দিয়েছে এবং এই পণ্যগুলোর দাম রমজানে বাড়ানো হবে না। তারপরও, বাংলাদেশে সরবরাহ চেইন ইম্প্রুভ করার চেষ্টা করতে বলে তিনি জানিয়েছেন এবং ব্যবসায়ীদের সাথে সহযোগিতা করতে বলেছেন।

প্রতিমন্ত্রী একইভাবে জানিয়েছেন, বাজারে রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের কোনো ঘাটতি নেই এবং গত দেড় মাসে চালের বাজারে অস্থিরতা ছিল, কিন্তু এখন তাতে সুধার হয়েছে। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর পরই রোজা রখতে যারা পণ্য আমদানি ও উৎপাদন করেন তাদের সঙ্গে বসেছেন এবং আমদানি এবং উৎপাদন পর্যাপ্ত পরিমাণে রয়েছে।

বাজার সহনীয় পর্যায়ে রাখতে সরকারের চেষ্টা সেভাবে প্রভাব পড়ছে না বলে বলেছেন আহসানুল ইসলাম টিটু। তিনি বলেছেন, এবং তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী সরবরাহ ইম্প্রুভ করতে বলা হয়েছে। এছাড়া ধর্মীয় অনুভূতির প্রধানতা দিয়ে তারা ব্যবসা করতে হবে এবং রমজানে বাজার তদারকি বাড়ানো হবে।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, রমজানে এই মুহূর্তে বাজারে একটা চাপ কমে নেই এবং তিনি বিশেষভাবে তেলের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছেন। সে কারণে আপনারা বোতলজাত সয়াবিন তেলের প্রতি লিটারে ১৬৩ টাকা এবং খোলা তেলের প্রতি লিটারে ১৪৯ টাকা ওপরে কেউ বিক্রি করতে পারবে না। তাতে কোনো ব্যতিয়ায় হলে কঠোর পদক্ষেপ নেব।

আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, প্রধানমন্ত্রী তাদের সাথে যদি কেউ ব্যাঘাত ঘটায়, তাহলে শক্ত পদক্ষেপ নেয়া হবে এবং তারা সমস্যার সমাধানে নিজেদের ব্যবসার সঙ্গে সহযোগিতা করবে। তারপরও, প্রতিমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই বিষয়ে অত্যন্ত সতর্কতা দেওয়া হয়েছে এবং বাজার মনিটরিং ইনশাল্লাহ বাড়ানো হবে।

তিনি জানিয়েছেন, হঠাৎ করে শুনলাম লেবুর দাম বেড়ে গেছে এবং এটি দুই-তিন দিনের মধ্যে পৌঁছানো হতে পারে। তারা এখানে দ্বিধা করছে এবং তারা বাজার মনিটরিং শুরু করছে যাতে এই সমস্যা হতে না দেখতে।

সম্মুখ রয়েছে মিয়ানমারের সঙ্গে একটি চুক্তি, এবং তাদের অপেক্ষায় আছে ভারতের সঙ্গে একটি চুক্তি এবং আসন্ন কিছুই বলা যায়নি সঙ্গে কোনও একটি চুক্তি হবে কিনা তা।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, বর্তমানে রয়েছে ১ কোটি পরিবারকে সাবসিডাইজ প্রাইজে পণ্য দেওয়া। পরবর্তীতে আমরা ফেয়ারপ্রাইজে মাল্টিপল প্রোডাক্ট সরবরাহ করতে চেষ্টা করব, যদি এই রকম সোর্স থাকে।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, এখন চালের স্বয়ংসম্পূর্ণ হলেও গম, ভুট্টা, ডালের ক্ষেত্রে শতভাগ স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারিনি। এগুলো আমাদের বিভিন্ন জায়গা থেকে আনতে হয়। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গমের উৎস হলো রাশিয়া। আজকে যে প্রোডাক্টগুলো তারা সাইন করল। রাশিয়ান ফেডারেশন থেকে তারা যদি সাপোর্ট দিতে পারে তাহলে আমাদের ফুড সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটির একটা বড় বাফার স্টক আমরা তৈরি করতে পারব।

Related posts

জাপান,গরুর গোবর দিয়ে উড়াল রকেট!

Megh Bristy

জেনে নেয়া যাক- আনারসের কিছু গুণাগুণ

Megh Bristy

জায়েদের সঙ্গে অভিনয়ের প্রস্তাব নিয়ে যা বললেন ইধিকা

Suborna Islam

Leave a Comment