ইসলাম ধর্ম

দুই মুসলমানের সাথে বিবাদ মেটানো ব্যক্তিকে উত্তম বলা হয়েছে

pickynews24

মুসলমান পরস্পর ভাই ভাই। আল্লাহ তাআলা পুরো মুসলিম উম্মাহকে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করেছেন। মুসলমানদের কর্তব্য পারস্পরিক সুসম্পর্ক বজায় রাখা। একইসাথে অন্যদের মধ্যেও সুসম্পর্ক বজায় রাখার চেষ্টা করা। কেউ বিবাদে জড়িয়ে পড়লে মীমাংসা করে দেওয়ার নির্দেশনা এসেছে কোরআনে। এই কাজের জন্য রহমত দান করার প্রতিশ্রুতিও রয়েছে। আল্লাহ তাআলা বলেন,

اِنَّمَا الۡمُؤۡمِنُوۡنَ اِخۡوَۃٌ فَاَصۡلِحُوۡا بَیۡنَ اَخَوَیۡکُمۡ وَ اتَّقُوا اللّٰهَ لَعَلَّکُمۡ تُرۡحَمُوۡنَ

নিশ্চয় মুমিনরা পরস্পর ভাই ভাই। কাজেই তোমরা তোমাদের ভাইদের মধ্যে আপস-মীমাংসা করে দাও। আর তোমরা আল্লাহকে ভয় কর, আশা করা যায় তোমরা অনুগ্রহপ্রাপ্ত হবে। (সুরা হুজরাত : আয়াত ১০)

দুই মুসলমানের সাথে বিবাদ বা মনোমালিন্য হলে যে আগে নিজেদের বিবাদ মেটানোর উদ্যোগ নেবে তাকে উত্তম ব্যক্তি বলা হয়েছে হাদিসে। আবু আইয়ুব আনসারি (রা.) থেকে বর্ণিত, আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন, কোনো মুসলমানের জন্য তার কোনো ভাইয়ের সঙ্গে তিন দিনের বেশি এমনভাবে সম্পর্ক ছিন্ন করে রাখা বৈধ নয় যে তাদের দুজনের দেখা হলে দুজন দুদিকে চেহারা ঘুরিয়ে নেবে। তাদের মধ্যে উত্তম ওই ব্যক্তি যে প্রথম সালাম করবে। (সহিহ বুখারি: ৬২৩৭)

মুসলমানদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করা কাফের ও মুনাফিকদের বৈশিষ্ট্য। অন্য মুসলমানদের কল্যাণ কামনা করা ইমানের লক্ষণ। আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে এসেছে, আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, তোমাদের কেউ প্রকৃত মু’মিন হবে না, যতক্ষণ না সে তার ভাইয়ের জন্য তাই পছন্দ করবে, যা নিজের জন্য পছন্দ করে। (সহিহ বুখারি: ১৩)

Related posts

আল্লাহ রাব্বুল আলামিন, তিনি তোমাদের জীবন দান করেছেন, তিনি আবার মৃত্যু দেবেন

Asma Akter

রাসুল (সা.) আঙুলে গুনে জিকির করতেন

Asma Akter

কঠিন শাস্তি রয়েছে তাদের জন্য, যারা নামাজে বাঁধাদান ও জুলুম করে।

Asma Akter

Leave a Comment