ইসলাম ধর্মসর্বশেষ

জুমার দিন শয়তান মানুষকে নামাজ থেকে বিরত রাখতে চেষ্টা করে

pickynews24

ইসলামের চতুর্থ খলিফা হজরত আলী (রা.) একদিন কুফার মসজিদের মিম্বরে দাঁড়িয়ে বলেন, জুমার দিন এলে শয়তান তার দলসহ বাজারে (বা লোকদের একত্রিত হওয়ার স্থানে) ঘুরে বেড়ায় আর মানুষকে বিভিন্ন প্রয়োজনের বেড়াজালে আটকে রেখে নামাজ থেকে বিরত রাখতে চেষ্টা করে এবং জুমায় উপস্থিত হতে দেরি করিয়ে দেয়।

অন্যদিকে ফেরেশতারা তাদের নথিপত্রসহ আসেন এবং মসজিদের দরজায় বসে সবার মসজিদে উপস্থিত হওয়ার সময় লিপিবদ্ধ করেন। ইমাম খুতবা দেয়ার জন্য মিম্বরের উপর আরোহন করা পর্যন্ত তারা লিখতে থাকেন। (ইমাম মিম্বরের ওপর বসলে তারা খাতা বন্ধ করে দেন)।

ইমাম খুতবা দেয়া শুরু করলে যে ব্যক্তি চুপচাপ বসে শোনে সে দুটি সওয়াব লাভ করে। যে ব্যক্তি এত দূরে বসে যে, ইমামের খুতবা শুনতে পায় না; তবুও সে চুপ করে বসে থাকার জন্য একটি সওয়াব লাভ করে।

যে ব্যক্তি এমন জায়গায় বসে যে জায়গা থেকে সে ইচ্ছা করলে ইমামের খুতবা শুনতে এবং তাকে দেখতেও পারে, কিন্তু সে তা না করে অনর্থক কথা ও কাজে ব্যস্ত থাকে, সে গুনাহগার হবে। যে ব্যক্তি জুমার দিন ইমামের খুতবার সময় অন্যকে চুপ থাকতে বলে সেও অনর্থক কাজ করলো। যারা এ রকম অনর্থক কথা বা কাজ করে, তারা জুমার দিনের কোনো ফজিলত পাবে না।

এ কথাগুলো বলার পর আলী (রা.) বলেন, আমি আল্লাহর রাসুলকে (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এ রকম বলতে শুনেছি।

Related posts

ইতিহাসে যে দিনটি একবারই এসেছিল ‘৩০ ফেব্রুয়ারি’

Megh Bristy

আগামীকাল থেকে শুরু ‘কুয়াশা উৎসব’ নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে

Megh Bristy

গোসলের পরিবর্তে তায়াম্মুমের বিধান

Asma Akter

Leave a Comment