ইসলাম ধর্মসর্বশেষ

সিগারেট খেলে কি নামাজ হবে?

ধূমপানের অভ্যাসে আর্থিক অপচয় ও সাস্থ্যগত গুরুতর ক্ষতি । সম্পদ অপচয় করা ও নিজের শরীরের ক্ষতি করা গুনাহের কাজ। আল্লাহ তাআলা বলেছেন,

وَلا تُلْقُوا بِأَيْدِيكُمْ إِلَى التَّهْلُكَةِ
তোমরা নিজের হাতে নিজেদের ধ্বংসে নিক্ষেপ করো না। (সুরা বাকারা: ১৯৫)

আরেক আয়াতে আল্লাহ বলেছেন, যারা রাসুলকে অনুসরণ করে, তিনি তাদের জন্য পবিত্র বস্তুসমূহ জায়েজ করেন এবং অপবিত্র ও খারাপ বস্তু তাদের জন্য হারাম করেন। আল্লাহ বলেন,

اَلَّذِیۡنَ یَتَّبِعُوۡنَ الرَّسُوۡلَ النَّبِیَّ الۡاُمِّیَّ الَّذِیۡ یَجِدُوۡنَهٗ مَکۡتُوۡبًا عِنۡدَهُمۡ فِی التَّوۡرٰىۃِ وَ الۡاِنۡجِیۡلِ یَاۡمُرُهُمۡ بِالۡمَعۡرُوۡفِ وَ یَنۡهٰهُمۡ عَنِ الۡمُنۡکَرِ وَ یُحِلُّ لَهُمُ الطَّیِّبٰتِ وَ یُحَرِّمُ عَلَیۡهِمُ الۡخَبٰٓئِثَ
যারা সেই নিরক্ষর রাসূলের অনুসরণ করে চলে যার কথা তারা তাদের নিকট রক্ষিত তাওরাত ও ইনজিলে লিখিত পায়, যে মানুষকে সৎ কাজের নির্দেশ দেয় ও অন্যায় কাজ করতে নিষেধ করে, আর সে তাদের জন্য পবিত্র বস্তুসমূহ জায়েজ করে এবং অপবিত্র ও খারাপ বস্তু তাদের জন্য হারাম করে। (সুরা আরাফ: ১৫৭)

জনসমক্ষে ধুমপান করলে বা ধুমপানের গন্ধ মুখে নিয়ে জনসমাগমে গেলে তা অন্যদের কষ্ট ও ক্ষতির কারণ হয়। এটাও গুনাহের কাজ। আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেছেন,

مَنْ كَانَ يُؤْمِنُ بِاللَّهِ وَاليَوْمِ الآخِرِ فَلاَ يُؤْذِي جَارَهُ.
যে আল্লাহ তাআলা ও শেষ দিবসের ওপর ইমান রাখে সে যেন তার আশপাশের মানুষদের কষ্ট না দেয়। (সহিহ বুখারি)
সিগারেট খেলে কি ৪০ দিন ইবাদত কবুল হয় না

‘সিগারেট খেলে ৪০ দিনের ইবাদত কবুল হয় না’–এ বিষয়ে কোরআন-হাদিসে স্পটভাবে উল্লেখ্য নেই ।   তবে বর্তমান আলেমওলামাগণ সিগারেট কে হারাম বলেই ফতুয়া দিয়ে থাকেন।

সিগারেট খেলে কি নামাজ হবে

সিগারেট খেয়ে নামাজে দাঁড়ানো মাকরূহ । যদিও নামাজ হয়ে যাবে তবে এটি একটি নাজায়েজ কাজ এতে করে পাশের মুসল্লিদের কষ্ট হয় ।
কিন্তু যদি কেউ মধ পান করে তাহলে তার ৪০ দিনের ইবাদত নামাজ কবুল হবে না।

রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, আমার উম্মত কেউ যদি মধ পান করে তাহলে আল্লাহ তায়ালা তার ৪০ দিনের নামাজ কবুল করবেন না।
সিগরেট হারাম হওয়ার কিছু কারণ
  • ১। সিগারেট খাওয়া একটি অপচয় , আর যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, ইসলামে তা হারাম।
  • ২। এতে দুর্গন্ধ আছে, সিগারেটের গন্ধ আশপাশের মানুষকে কষ্ট দেয়।
  • ৩। এতে রয়েছে স্বাস্থ্যগত ক্ষতি, আর যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, ইসলামে তা হারাম।

তাই কেউ কেউ মাকরুহ বললেও বর্তমান সময়ের বেশিরভাগ নির্ভরযোগ্য আলেম সিগারেট খাওয়াকে নাজায়েজ বা হারাম বলেছেন। এ অভ্যাস কারো থাকলে যত দ্রুত সম্ভব ছেড়ে দিতে হবে।

Related posts

আইফোনেও করুন কল রেকর্ডিং জানবে না কেউ

Rubaiya Tasnim

ছোলার ডাল দিয়ে রুই মাছ রান্নার রিসিপি

Asma Akter

৪ নভেম্বর চালু হচ্ছে অ্যাপ , ষষ্ঠ-সপ্তমের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নে

Megh Bristy

Leave a Comment